খ্রিস্টান


If You Have Problem With Bangla Download This Software

খ্রিস্টান / Christianity

 

You Will Success If you Use Brain.exe -You Will Fail If You Use Cheat or Trainer

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহীম

খ্রিস্টান হচ্ছে একটি সেমিটিক ধর্ম।খ্রিস্টান ধর্ম নামটি ঈসা আঃ সাথে সম্পৃক্ত ইসলামই একমাএ হচ্ছে অখ্রিস্টান  ধর্ম যেখানে ঈসা (যিশু খ্রিস্ট) আঃ কে নবী হিসাবে দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করে।

বিশ্বাস –

  • কেউ বিশ্বাস করে ঈসা আঃ ছিলেন সৃস্টিকর্তার ছেলে ।কেউ বিশ্বাস করে ঈসা আঃ ছিলেন সৃস্টিকর্তা । এিত্ব বা তিনের এক নামক ঈসা আঃ সৃস্টিকর্তা।

বিশ্বাস সম্পর্কে তাদের বই কি বলে?

  • একদিন ঈসা আঃ কে সর্বপ্রথম বিধান সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল ।তখন মুসা আঃ যে কথাটি বলেছিলেন তিনিও সে কথাটি পুনরাবৃতি করলেন অর্থাৎ তিনি বললেন শোন ইসরাইল বাসীরা আমাদের সৃষ্টিকর্তা এক।(Mark 12-29 )

  • আমার কাছে যা শুনতে পাও তা আমার নই বরং যিনি আমাকে পাঠিয়েছেন তারই।(Gospel of John 14:24)

  • আমার কথাগুলো শোন নাজারাথের ঈসা তোমাদের মধ্য থেকে এক মনোনীত বান্দা ,যিনি এসেছেন সম্পর্ন অলৌকিকভাবে ,আর সৃষ্টিকর্তা তা করেছেন তোমাদের সবার উপস্হিতিতে।আর তোমরা উহার সাক্ষী ছিলে (book of ex 2-22)

ইসলামে ঈসা আঃ সম্পর্কে বিশ্বাস।

  • কোন মুসলিম প্রকৃত মুসলিম হতে পারবে না যদি না সে ঈসা আঃ কে দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করে।

  • আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি যে মহান আল্লাহ ঈসা আঃ কে নবী হিসাবে পাঠিয়েছেন।

  • আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি যে তিনি অলৌকিকভাবে জন্ম গ্রহন করেছেন।কোন পুরুষের ঔরসজাত ছিলেন না।

  • আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি যে তিনি আল্লাহর অনুমতি সাপেক্ষে মৃতকে জীবন দান করতেন।

  • আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি যে তিনি আল্লাহর অনুমতি সাপেক্ষে অন্ধকে অন্ধত্ব থেকে ও কুষ্ঠ রোগীকে কুষ্ঠ থেকে মুক্তি দান করতেন।

বইসুমহ – বাইবেল

সৃস্টিকর্তার (আল্লাহর) কিছু বানী

সৃস্টিকর্তার শেষ রাসুল হযরত মোহাম্মদ (সাঃ) hazrat Mohammad (PBUH) Is The Final Messenger Of God (Allah) (রাসুল মানে – বার্তাবাহক)

  • সুরা নিসা – (৪)৭৯ নং আয়াত – আল্লাহ বলছেন – আমি তোমাকে [মোহাম্মাদ (সা:)] সমগ্র মানব জাতির জন্য রাসুল বানিয়ে পাঠিয়েছি।

  • সুরা ইমরান (৩) ১৯ নং আয়াত – আল্লাহ বলছেন – নিঃসন্দেহে আল্লাহর কাছে ইসলাম একমাএ গ্রহন যোগ্য ব্যাবস্তা ।

  • সুরা আন নাহল – (১৬) ৩৬ নং আয়াত – আল্লাহ বলছেন – আমি প্রত্যক জাতির কাছে নবী ও রাসুল পাঠিয়েছি।

  • সুরা নিসা – ১৬৪ – নং আয়াত – আল্লাহ বলছেন – আমি আগে তোমাকে (নবী সাঃ )বলেছি কিছু নবীদের কথা ,কিছু রাসুলদের কথা বাকিদের কথা বলিনি।

কিভাবে খ্রিস্টানরা মুসলিম কে খ্রিস্টান ধর্মে পরিচালিত করেন?

  • খ্রিস্টান ভাই – ভাই ভাল আছেন?

  • মুসলিম ভাই – হ্যাঁ ভাল আছি।

  • খ্রিস্টান ভাই – ভাই আপনি কি ঈসা আঃ কে বিশ্বাস করেন?

  • মুসলিম ভাই – হ্যাঁ।

  • খ্রিস্টান ভাই – ভাই আপনি কি জানেন ইঞ্জিল আল্লাহর বানী ও কোরআনে ইঞ্জিলের কথা বলা হয়েছে?

  • মুসলিম ভাই – হ্যাঁ।

  • খ্রিস্টান ভাই – ভাই তাহলে আপনি কেন শুধু কোরআন মানছেন ইঞ্জিল মানছেন না?

  • মুসলিম ভাই – confused।

উত্তর – কারন কোরআন আল্লাহর শেষ বানী ,আল্লাহ বলেছেন তিনি যত কিতাব নাযিল করেছেন সব গুলো মানুষ বিকৃত করেছে।আপনাদের বই এর নাম তো বাইবেল ইঞ্জিল না।

  • খ্রিস্টান ভাই – ভাই আপনি কি জানেন মোহাম্মদ সাঃ এর নাম কত বার কোরআনে এসেছে?

  • মুসলিম ভাই – না

  • খ্রিস্টান ভাই – মোহাম্মদ সাঃ নাম কোরআনে ৫বার বলা হয়েছে।একবার আহমেদ সাঃ আর ৪বার মোহাম্মদ।

  • খ্রিস্টান ভাই – ভাই আপনি কি জানেন ঈসা আঃ এর নাম কত বার কোরআনে এসেছে?

  • মুসলিম ভাই – না।

  • খ্রিস্টান ভাই – ২৫ বার।

  • খ্রিস্টান ভাই – তাহলে কে বড়?ঈসা আঃ না মোহাম্মদ সাঃ?

  • মুসলিম ভাই – confused।

উত্তর – কোরআন যখন নাযিল হই তখন মোহাম্মদ সাঃ জীবিত ছিলেন এ জন্য তার নাম উল্লেখ করা জরুরী ছিল না ।এজন্য মোহাম্মদ সাঃ কে কোরআনে অনেক বার তুমি,নবী সাঃ,রাসুল সাঃ বলা হয়েছে।নাম দিয়ে কেও বড় হই না মুসা আঃ এর নাম কোরআনে ১৩২ বার এসেছে।

  • খ্রিস্টান ভাই – ভাই মোহাম্মদ সাঃএর কি পিতা মাতা ছিলেন।

  • মুসলিম ভাই – হ্যাঁ।

  • খ্রিস্টান ভাই – ঈসা আঃ এর কি পিতা মাতা ছিলেন?

  • মুসলিম ভাই – শুধু মাতা ছিলেন ।

  • খ্রিস্টান ভাই – তাহলে কে বড়?যার পিতা মাতা ২টায় আছে নাকি যার শুধু মাতা আছে?

  • মুসলিম ভাই – confused।

উত্তর – আদম আঃ ও হাওয়া বিবির কোন পিতা মাতা ছিলেন না।

  • খ্রিস্টান ভাই – ভাই আপনাদের মোহাম্মদ সাঃ কি বেঁচে আছেন না মারা গেছেন?

  • মুসলিম ভাই – মারা গেছেন

  • খ্রিস্টান ভাই – ঈসা আঃ কি বেঁচে আছেন না মারা গেছেন?

  • মুসলিম ভাই – বেঁচে আছে।সুরা নিসা -১৫৮

  • খ্রিস্টান ভাই – তাহলে কে বড়?যে বেঁচে আছে না যে মারা গেছে?

  • মুসলিম ভাই – confused।

উত্তর – ঈসা আঃ এমন একজন নবী যাকে তার কওমের লোক তার কথা মেনে নেননি।কোরআনে এও বলা আছে ঈসা এসে ইসলাম কে প্রতিষ্ঠিত করবেন।

  • খ্রিস্টান ভাই – ভাই মোহাম্মদ সাঃ কি মোযেজা করেছেন?

  • মুসলিম ভাই – হ্যাঁ অনেক করেছেন।

  • খ্রিস্টান ভাই – ভাই মোহাম্মদ সাঃ কি মৃত কে জীবন দান করেছেন?

  • মুসলিম ভাই – না।

  • খ্রিস্টান ভাই – ভাই আপনি কি জানেন ঈসা সাঃ মৃত কে জীবন দান করেছেন?

  • মুসলিম ভাই – হ্যাঁ।

  • খ্রিস্টান ভাই – তাহলে কে বড়?যিনি জীবন দান করতে পারে না সে ,নাকি যে জীবন দান করেননি?

  • মুসলিম ভাই – হ্যাঁ ।confused

উত্তর – নবীরা যত মোযেজা করেছেন আল্লাহ তরফ থেকে তা করেছেন ।ঈসা আঃ মৃত কে জীবন দান করেছেন ।মুসা আঃ যখন লাঠি মাটিতে ফেলতেন তখন লাঠিটা সাপ হয়ে যেত । মুসা আঃ লাঠি কে জীবন দান করেছেন আবার সাপ ও বানিয়েছেন।২টি Miracle এক সাথে।

খ্রিস্টান ভাই কখনই সরাসরি বলবে না ভাই খ্রিস্টান হয়ে যান শুধু ইশারা করবে ।আর আপনাকে চিন্তাই ফেলে দিবে।

কিছু প্রশ্নোত্তর

১ । সৃষ্টিকর্তা যদি সর্বশক্তিমান ও সব কিছুই করতে সক্ষম তাহলে কেন তিনি মানুষের রুপ ধারন করে পৃথিবী আসবেন না?

উঃ – আপনি একটা ভিসিডি চালাবেন ।এখন ভিসিডি টা চালানোর জন্য আপনাকে ভিসিডি এর মত হওয়া লাগবে না।ভিসিডি টা চালানোর জন্য একটা ম্যানুয়াল বই আছে ,তাতে লেখা আছে আপনি প্লে বাটন প্রেস করলে প্লে হবে ইত্যাদি।আর সেই ম্যানুয়াল বইটা হলো কোরআন।

(নিস্চয় ভাল কাজ মোমিন মানুষের লক্ষন।এইগুলো মানুষের কাছে পৌছে দিয়ে কিছু সওয়াবের অধিকারি হন।দয়া করে পেজটি শেয়ার করতে ভুলবেন না ভাই ও বোনেরা ধন্যবাদ )


Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: