জিহাদ


If U Have Problem With Bangla Download This Software

জিহাদ /Jihad

You Will Success If you Use Brain.exe -You Will Fail If You Use Cheat or Trainer

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহীম

আসসালামু অলাইকুম

জিহাদ কি?

বর্তমানে ইসলামের যে শব্দটি নিয়ে সবচেয়ে বেশি ভুল ধারনা আছে সে শব্দটি হলো জিহাদ।এ ব্যাপারে শুধু যে অমুসলিমদেরই ভুল ধারনা আছে তা নই ।এই জিহাদ শব্দ নিয়ে মুসলিমদের মধ্যও অনেক ভুল ধারনা পোষন করে।অনেক লোক ভাবে – কোন যুদ্ধ যদি মুসলিমরা মনে করে থাকে ,যে কোন কারনে হোক সে ক্ষমতার জন্য ,হোক সে নিজের লাভের জন্য,হোক সেটি টাকার জন্য সেটিই হচ্ছে জিহাদ।

  • মুসলিমরা যে যুদ্ধে অংশ নেয় – হোক সেটি ক্ষমতার জন্য ,হোক সেটি নিজের লাভের জন্য সেগুলো জিহাদ নয়।

জিহাদ একটি আরবি শব্দ যেটি এসেছে যাহদুন থেকে ।যার অর্থ চেস্টা করা,সংগ্রাম করা,ইসলাম ধর্মে জিহাদ করা মনে মানে নিজের বিভিন্ন অন্যায় কাজের বিরুদ্ধে সংগ্রাম করে যাওয়া ।এর অর্থ সমাজের উন্নতির জন্য চেষ্টা করা এবং সংগ্রাম করে যাওয়া।এর অর্থ যুদ্ধ ক্ষেএে আত্নরক্ষা আর সংগ্রাম করে যাওয়া। আরেকটি অর্থ অন্যায় আর অত্যাচারের বিরুদ্ধে চেষ্টা এবং সংগ্রাম করা।যদি কোন ছাএ পরীক্ষা পাশের করার জন্য চেষ্টা বা সংগ্রাম করে যায় তার অর্থ সে জিহাদ করছে।

  • যুদ্ধ ক্ষেএে কখন হবে – যখন অন্য কোন দেশের সাথে যুদ্ধ শুরু হয়ে যাবে আর সরকার আমাদের ডাক দিবে তখন সেটা হবে যুদ্ধ ক্ষেএে জিহাদ ।

অনেক অমুসলিমরা জিহাদের বাংলা অনুবাদ করে থাকেন পবিএ যুদ্ধ ।দুর্ভাগ্য যে অনেক মুসলিম বিশেষজ্ঞরা বলে থাকেন জিহাদ মানে পবিএ যুদ্ধ।যদি আপনি এই পবিএ যুদ্ধ এর আরবি করেন তাহলে হবে হারবুম মুকাদ্দাসা আর এই হারবুম মুকাদ্দাসা শব্দটি কোরআন বা হাদিসের কোথাও নাই।
এই পবিএ যুদ্ধ শব্দটি প্রথমে ব্যবহার করা হয়েছিল Crusader  বুঝাতে।যখন Crusader রা খিষ্টান ধর্মের নামে হাজার হাজার মানুষকে হত্যা করত তারাই এই নাম দিয়েছিল পবিএ যুদ্ধ ।

  • অনেক মানুষ এই আয়াতের ভুল ব্যাখা দেয় বা অনেক মানুষ ভুল বুঝে।ফলে কিছু লোক ইসলাম বিরোধী ও সরকার বিরোধী কাজে লিপ্ত হয় তাদের জন্য মুসলিম জাহান আজ জিহাদ নামটি নিয়ে কলন্কিত এবং আমাদের মুসলিম সমাজের অনেক ক্ষতি সাধিত হয়েছে –  সুরা তাওবা ৫ নং আয়াত – যখন তোমরা কোন কাফিরদের দেখবে তাদের মেরে ফেল।

তবে এইটি প্রসঙ্গ ছাড়া উদ্ধতি।এই আয়াতের আগে ও পরে আরো কথা আছে সেখানে বলা হয়েছে – একটি শান্তি চুক্তি হয়েছিল সেখানকার মুসলিম আর মক্কার মুশরেকদের মধ্য এবং মক্কার মুশরেকরা সেই শান্তি চুক্তির শর্তগুলো ভেঙ্গেছিল।আর তখনই সুরা তাওবার ৫ নং আয়াত আল্লাহ নাযিল করেন।তিনি এইখানে মুসরেকদের চূড়ান্ত প্রস্তাবটি দিয়েছেন – তোমরা আগামি ৪ মাসের মধ্য সব ভুল সুধরে ফেল নাহলে তোমাদের যুদ্ধ করতে হবে।সেই যুদ্ধে আল্লাহ বলছেন মুসলিমদের উদ্দেশ্য করে তোমরা ভয় পেও না ।যেখানেই তোমরা শত্রু দেখবে মেরে ফেল।যে কোন আর্মি জেনারেল তার সৈন্যদের মনোবল বাড়াতে স্বাভাবিকভাবে এই কথা বলবেন – যদি শত্রুদের দেখ মেরে ফেলবে।
একথা বলবেন না যেখানে শত্রুদের দেখবে সেখানে তোমরা মরে যাও।যদি আমেরিকা আর ভিয়েতনামের যুদ্ধটি চলতে থাকত আর আমেরিকার আর্মি জেনারেল সৈন্যদের মনোবল বাড়াতে বলল যেখানে ভিয়েতনামিদের দেখবে তাদের মেরে ফেল।এইটা হল প্রসঙ্গ।কিন্তু আমরা যদি প্রসঙ্গ ছাড়া বলি – আমেরিকার আর্মি জেনারেল সৈন্যদের বলেছেন যেখানে ভিয়েতনামিদের দেখবে মেরে ফেল।সে একটা কসাই এইটা প্রসঙ্গ ছাড়া উদ্ধৃতি
সুরা তাওবা ৬ নং আয়াতে এ অভিযোগের উত্তর দেওয়া আছে যদি কাফিরদের অর্থাৎ শত্রুদের কেউ আশ্রয় প্রার্থনা করলে শুধু সাহায্য করলে হবে না বলা হয়েছে তাদের নিরাপদ কোন স্হানে পৌছে দিবে।যেন সে আল্লাহর বানী শুনতে পায়।

মৌলবাদী

মিডিয়া প্রচার করে থাকে মুসলমানরা চরমপন্হী । মিডিয়া এখন মুসলিমদের মৌলবাদী বলে।

মৌলবাদী শব্দের অর্থ কি?

মৌলবাদী শব্দের অর্থ হল যে কোন নির্দিষ্ট বিষয় বস্তুর মুলনীতি গুলো মেনে চলা।যদি কোন লোক বিজ্ঞানী হতে চায় তাহলে তাকে বিজ্ঞানের মুলনীতি গুলো মেনে চলতে হবে যদি সে বিজ্ঞানে বিষয়ে মৌলবাদী  না হয় তা হলে সে বিজ্ঞানী হতে পারবে না।যদি কোন লোক গনিতজ্ঞ হতে চায় তাহলে তাকে গনিতের মুলনীতি গুলো মেনে চলতে হবে যদি সে গনিতের বিষয়ে মৌলবাদী  না হয় তা হলে সে গনিতজ্ঞ হতে পারবে না।

সব মৌলবাদীকেই আপনি এক কাঠীতে মাপতে পারবেন না যে তারা সবাই ভাল বা সবাই খারাপ।একজন মৌলবাদী ডাকাত সে ডাকাতি করে সে সমাজের জন্য ক্ষতিকর আরঅন্যদিকে একজন মৌলবাদী ডাক্তার যে লোকদের জীবন বাচায়।সে সমাজের জন্য উপকারি।সব মৌলবাদীকে আপনি এক মাপকাঠিতে মাপতে পারবেন না।আপনাকে দেখতে হবে সে কোন ক্ষেএে মৌলবাদী ।

অয়েবস্টার ডিকশনারি পড়লে দেখতে পারবেন মৌলবাদী শব্দটি প্রথমে ব্যাবহার করেছে প্রোটেস্ট্যান খ্রিষ্টানদের বুঝাতে।যদি আপনারা অক্সফোর্ড ডিকশনারি পড়লে দেখতে পারবেন বল হয়েছে মৌলবাদী একজন ব্যক্তি যে ধর্মের প্রাচীন নিয়ম গুল কঠোর ভাবে মেনে চলে।তবে আপনারা নতুন অক্সফোর্ড ডিকশনারি দেখেন দেখবেন সেখানে কিছুটা পরিবর্তন করা হয়েছে বলা হয়েছে মৌলবাদী একজন ব্যক্তি যে ধর্মের প্রাচীন নিয়ম গুলো কঠোর ভাবে অনুসরন করে বিষেশ ভাবে মুসলমান।

Source – irf.net

Under construction

(নিস্চয় ভাল কাজ মোমিন মানুষের লক্ষন।এইগুলো মানুষের কাছে পৌছে দিয়ে কিছু সওয়াবের অধিকারি হন।দয়া করে পেজটি শেয়ার করতে ভুলবেন না ভাই ও বোনেরা ধন্যবাদ )

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: